বৃহস্পতিবার, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৯:৪৩ অপরাহ্ন

কারোনায় মৃত্যু ১৯, সুস্থ ১,৫১৯

প্রতিবেদক: দেশে করোনাভাইরাস শনাক্তের ২৪৯তম দিনে এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে আজ মারা গেছে ১৯ জন। একই সময়ে সুস্থ হয়েছেন ১ হাজার ৫১৯ জন। গতকালের চেয়ে আজ ৬ জন বেশি মৃত্যুবরণ করেছেন। গতকাল মৃত্যুবরণ করেছিলেন ১৩ জন। দেশে এ ভাইরাসে এ পযর্ন্ত ৬ হাজার ১৫৯ জন মারা গেছে।

করোনা শনাক্তের বিবেচনায় আজ মৃত্যুর হার ১ দশমিক ৪৪ শতাংশ। গত ৭ নভেম্বর থেকে মৃত্যুর একই হার বিদ্যমান। আজ স্বাস্থ্য অধিদফতরের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়েছে।

অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা স্বাক্ষরিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, করোনাভাইরাসে আক্রান্তদের মধ্যে গত ২৪ ঘন্টায় হাসপাতাল এবং বাসা মিলিয়ে সুস্থ হয়েছেন ১ হাজার ৫১৯ জন। গতকালের চেয়ে আজ ২১৮ জন কম সুস্থ হয়েছেন। গতকাল সুস্থ হয়েছিলেন ১ হাজার ৭৩৭ জন।

আজ শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থ্যতার হার ৮০ দশমিক ৭৫ শতাংশ। আগের দিন এই হার ছিল ৮০ দশমিক ৭৩ শতাংশ। আগের দিনের চেয়ে আজ সুস্থ্যতার হার শূন্য দশমিক ০২ শতাংশ বেশি।

বিজ্ঞপ্তিতে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর জানায়, গত ২৪ ঘন্টায় ১৩ হাজার ৫৩৯ জনের নমুনা পরীক্ষায় ১ হাজার ৭৬৭ জনের দেহে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। গতকালের চেয়ে আজ ৭৮ জন কম শনাক্ত হয়েছে। গতকাল ১৭ হাজার ১১২ জনের নমুনা পরীক্ষায় শনাক্ত হয়েছিলে ১ হাজার ৮৪৫ জন। গত ২৪ ঘন্টায় নমুনা পরীক্ষার বিবেচনায় শনাক্তের হার ১৩ দশমিক ০৫ শতাংশ। আগের দিন এই হার ছিল ১০ দশমিক ৭৮ শতাংশ। গতকালের চেয়ে আজ শনাক্তের হার ২ দশমিক ২৭ শতাংশ বেশি।
দেশে এ পর্যন্ত মোট ২৫ লাখ ১৫ হাজার ৩৩৯ জনের নমুনা পরীক্ষায় ৪ লাখ ২৮ হাজার ৯৬৫ জনের দেহে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। মোট পরীক্ষার বিবেচনায় শনাক্তের হার ১৭ দশমিক ০৫ শতাংশ। গতকাল পর্যন্ত এই হার ছিল ১৭ দশমিক ০৮ শতাংশ।

বিজ্ঞপ্তিতে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর জানায়, করোনাভাইরাস শনাক্তে গত ২৪ ঘন্টায় নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে ১৩ হাজার ৯৬৭ জনের। আগের দিন সংগ্রহ করা হয়েছিল ১৬ হাজার ৯৬৮ জনের। গতকালের চেয়ে আজ ৩ হাজার ১টি নমুনা কম সংগ্রহ করা হয়েছে। গত ২৪ ঘন্টায় দেশের ১১৫টি পরীক্ষাগারে নমুনা পরীক্ষা হয়েছে ১৩ হাজার ৫৩৯ জনের। আগের দিন নমুনা পরীক্ষা হয়েছিল ১৭ হাজার ১১২ জনের। গত ২৪ ঘন্টায় আগের দিনের চেয়ে ৩ হাজার ৫৭৩টি কম নমুনা পরীক্ষা হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, বাংলাদেশের মোট জনসংখ্যার ভিত্তিতে প্রতি ১০ লাখে এ পর্যন্ত শনাক্ত ২৫১৮ দশমিক ৭৮ জন। সুস্থ হয়েছেন প্রতি ১০ লাখে এ পর্যন্ত ২০৩৩ দশমিক ৯০ জন এবং প্রতি ১০ লাখে মারা গেছেন এ পর্যন্ত ৩৬ দশমিক ১৬ জন।
স্বাস্থ্য অধিদপ্তর জানায়, ২৪ ঘন্টায় মৃত্যুবরণকারী ১৯ জনের মধ্যে পুরুষ ১৩ জন, আর নারী ৯ জন। এ পর্যন্ত পুরুষ মৃত্যুবরণ করেছেন ৪ হাজার ৭৪১ জন, আর নারী মৃত্যুবরণ করেছেন ১ হাজার ৪১৮ জন। শতকরা হিসেবে পুরুষ ৭৬ দশমিক ৯৮ শতাংশ, নারী ২৩ দশমিক ০২ শতাংশ। ২৪ ঘন্টায় ১৯ জনই হাসপাতালে মৃত্যুবরণ করেছেন।

স্বাস্থ্য অধিদফতর জানায়, গত ২৪ ঘন্টায় মৃত্যুবরণকারীদের মধ্যে ৫১ থেকে ৬০ বছরের ৫ জন এবং ষাটোর্ধ্ব রয়েছেন ১৪ জন। এখন পর্যন্ত মৃত্যুবরণকারীদের বয়স বিশ্লেষণে দেখা যায়, শূন্য থেকে ১০ বছরের মধ্যে রয়েছেন ২৯ জন, যা দশমিক ৪৭ শতাংশ। ১১ থেকে ২০ বছরের মধ্যে রয়েছেন ৪৮ জন, যা দশমিক ৭৮ শতাংশ। ২১ থেকে ৩০ বছরের মধ্যে রয়েছেন ১৪১ জন, যা ২ দশমিক ২৯ শতাংশ। ৩১ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে রয়েছেন ৩৩১ জন, যা ৫ দশমিক ৩৭ শতাংশ, ৪১ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে রয়েছেন ৭৫৭ জন, যা ১২ দশমিক ২৯ শতাংশ। ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে রয়েছেন ১ হাজার ৬২৪ জন, যা ২৬ দশমিক ৩৭ শতাংশ এবং ৬০ বছরের বেশি বয়সের রয়েছেন ৩ হাজার ২২৯ জন, যা ৫২ দশমিক ৪৩ শতাংশ।

মৃত্যুবরণকারীদের বিভাগভিত্তিক বিশ্লেষণে দেখা যায়, ২৪ ঘন্টায় ঢাকা বিভাগে ১৩ জন, রাজশাহী, খুলনা ও বরিশাল বিভাগে ১ জন করে এবং রংপুরে ৩ জন মৃত্যুবরণ করেছেন। এ পর্যন্ত মৃত্যুবরণকারীদের বিশ্লেষণে ঢাকা বিভাগে মারা গেছেন ৩ হাজার ২২৬ জন, যা ৫২ দশমিক ৩৮ শতাংশ। চট্টগ্রাম বিভাগে ১ হাজার ২০৯ জন, যা ১৯ দশমিক ৬৩ শতাংশ। রাজশাহী বিভাগে ৩৭৬ জন, যা ৬ দশমিক ১০ শতাংশ। খুলনা বিভাগে ৪৮১ জন, যা ৭ দশমিক ৮১ শতাংশ। বরিশাল বিভাগে ২০৬ জন, যা ৩ দশমিক ৩৪ শতাংশ। সিলেট বিভাগে ২৫৭ জন, যা ৪ দশমিক ১৭ শতাংশ। রংপুর বিভাগে ২৭৬ জন, যা ৪ দশমিক ৪৮ শতাংশ এবং ময়মনসিংহ বিভাগে ১২৮ জন, যা ২ দশমিক ০৮ শতাংশ।

ঢাকা মহানগরীতে কোভিড ডেডিকেটেড হাসপাতালে সাধারণ শয্যা সংখ্যা ৩ হাজার ৫১৯টি, সাধারণ শয্যায় ভর্তি রোগীর সংখ্যা ১ হাজার ৮৩০ জন ও শয্যা খালি আছে ১ হাজার ৬৮৯টি। আইসিইউ শয্যা সংখ্যা ৩১৪টি, আইসিইউ শয্যায় ভর্তি রোগী আছে ১৯৪ জন ও শয্যা খালি আছে ১২০টি। চট্টগ্রাম মহানগরীতে সাধারণ শয্যা সংখ্যা ৭৭০টি, ভর্তিকৃত রোগী ১২৭ জন ও শয্যা খালি আছে ৬৪৩টি। আইসিইউ শয্যা সংখ্যা ৩৯টি, আইসিইউ শয্যায় ভর্তি আছে ১১ জন ও শয্যা খালি আছে ২৮টি। সারাদেশে অন্যান্য হাসপাতালে সাধারণ শয্যা সংখ্যা ৭ হাজার ১৬৪টি, সাধারণ শয্যায় ভর্তিকৃত রোগী ৫২৫ জন ও শয্যা খালি আছে ৬ হাজার ৬৩৯টি এবং আইসিইউ শয্যা রয়েছে ২১১টি ও আইসিইউ শয্যায় ভর্তিকৃত রোগীর সংখ্যা ৬৯ জন ও শয্যা খালি আছে ১৪২টি। সারাদেশে হাসপাতালে সাধারণ শয্যা সংখ্যা ১১ হাজার ৪৫৩টি, রোগী ভর্তি আছে ২ হাজার ৪৮২ জন এবং শয্যা খালি আছে ৮ হাজার ৯৭১টি। সারাদেশে আইসিইউ শয্যা সংখ্যা ৫৬৪টি, রোগী ভর্তি আছে ২৭৪ জন এবং খালি আছে ২৯০টি। সারাদেশে অক্সিজেন সিলিন্ডারের সংখ্যা ১৩ হাজার ৬১৩টি। সারাদেশে হাই ফ্লো নেজাল ক্যানেলা সংখ্যা ৫৯৯টি এবং অক্সিজেন কনসেনট্রেটর ৩৯৩টি।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

পুরাতন খবর

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০  
© All rights reserved © 2017 nktelevision
Design & Developed BY Shera Web