সোমবার, ১৭ জানুয়ারী ২০২২, ০২:০৭ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম
নোয়াখালী পৌরসভায় পুনরায় মেয়র নির্বাচিত হলেন সোহেল নোয়াখালী পৌরসভায় ভোট গ্রহণ কাল, সবগুলো কেন্দ্র ঝুঁকিপূর্ণ নোয়াখালী পৌরসভার নির্বাচনে মেয়র প্রার্থী লেনিনের মহিলা সমাবেশ নৌকা নিয়ে ষড়যন্ত্র হচ্ছে, সংবাদ সম্মেলনে নোয়াখালী পৌর আওয়ামী লীগ জনপ্রিয়তার শীর্ষে কাউন্সিলর প্রার্থী মাঈন উদ্দিন সাজু মেয়র প্রার্থী লেনিনের গণসংযোগ উঠান বৈঠক নারী-পুরুষের ঢল বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর বাস্তবায়িত চারটি প্রকল্পের উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী করোনায় চারজনের মৃত্যু, শনাক্ত ২,৯১৬ নোয়াখালী পৌরসভা নির্বাচনে প্রচারণায় এগিয়ে মুকুলের টিউবওয়েল দেশের দু’এক জায়গায় গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টির আভাস

ক্ষমা চাওয়ার কথা বলে খালেদাকে মানসিক চাপ দেয়া হচ্ছে: গয়েশ্বর

ডেস্ক রিপোর্ট: বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেছেন, দেশের প্রতিটি সাধারণ মানুষেরই চিকিৎসা পাওয়ার অধিকার আছে। রাষ্ট্রের মৌলিক অধিকারগুলোর মধ্যে চিকিৎসা একটি। বেগম খালেদা জিয়া ক্ষমা চাইবে, এটা বলে তাকে আরো মানসিকভাবে চাপ দেয়া হচ্ছে। দেশে যদি আইন থাকতো তাহলে এটার বিচার হতো। পৃথিবীর এমন কোনো দেশ আছে, যেখানে চিকিৎসার জন্য সরকারের কাছে দাবি জানাতে হয়।

শুক্রবার ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির (ডিআরইউ) নসরুল হামিদ মিলনায়তনে সম্মিলিত ছাত্র যুব ফোরাম আয়োজিত এক সমাবেশে এসব কথা বলেন তিনি।

গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেন, আমরা বিশ্বাস করি, খালেদা জিয়া জনগণের জন্যই বেঁচে থাকবেন। সুতরাং আমার মনে হয়, খালেদা জিয়ার চিকিৎসার দাবির চেয়ে এই মুহূর্তে সরকার পতনের দাবিই মূল হওয়া দরকার। আজ একটি পত্রিকায় বলা হয়েছে, খালেদা জিয়া যদি রাষ্ট্রপতির কাছে ক্ষমা চান তাহলে মানবিক দিক থেকে বিবেচনা করা হবে। ক্ষমা চাইলেই রাষ্ট্রপতি ক্ষমা করবেন কী করবেন না সেটা বলা যায় না। আবার ক্ষমা করতেও পারেন। এখানে মানবিক কোনো দিক সরকারের হাতে থাকে না।

খালেদা জিয়ার বাড়িকে সাব-জেল ঘোষণা করা হয়েছে জানিয়ে গয়েশ্বর বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কথায় একটা জিনিস পরিষ্কার। তিনি বলেছেন, আমার যতটুকু ক্ষমতা ছিল তা দিয়ে তাকে (খালেদা জিয়াক) জেলখানা থেকে বাড়িতে রেখেছি। আমি সরকারের উদ্দেশে বলব, আপনি যদি জেলখানার পরিবর্তে খালেদা জিয়ার বাড়িতে ডাম্পিং করে থাকেন, তাহলে খালেদা জিয়ার বাড়িটাকে সাব-জেল ঘোষণা করেন।

দেশে ন্যায়বিচার পাওয়ার কোনো সুযোগ নেই মন্তব্য করে তিনি বলেন, ফাঁসির আসামিকেও মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের আগ মুহূর্ত পর্যন্ত চিকিৎসা সেবা দেয়া হয়, এটি সরকারের দায়িত্ব। কিন্তু এখন বাংলাদেশে ন্যায়বিচার পাওয়ার কোনো সুযোগ নেই। এখন শেখ হাসিনা এমন অবস্থায় গেছেন তার কথাই শেষ কথা। তার কথাই আইন, তার কথাই সংবিধান। হয়তো দুদিন পরে তার কথাই হবে ধর্ম।

সম্মিলিত ছাত্র যুব ফোরামের আহ্বায়ক এড. নাহিদুল ইসলাম নাহিদের সভাপতিত্বে সমাবেশে আরো উপস্থিত ছিলেন বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলু, নির্বাহী কমিটির সদস্য আবু নাসের মোহাম্মদ রহমতুল্লাহ, স্বেচ্ছাসেবক দলের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল কাদের ভূইয়া জুয়েল প্রমুখ।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

পুরাতন খবর

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২১৩
১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
২৮২৯৩০  
© All rights reserved © 2017 nktelevision
Design & Developed BY Shera Web