শনিবার, ২৮ জানুয়ারী ২০২৩, ০৩:১৮ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম
নোয়াখালীতে পুলিশ সার্ভিস এসোসিয়েশনের শীতবস্ত্র বিতরণ ও প্রীতিভোজ পেটের ভেতর ২ হাজার ইয়াবা নিয়ে নোয়াখালীতে কিশোর আটক বিএমএসএফ এর উদ্যোগে সাংবাদিক কাদেরকে মরণোত্তর সম্মাননা প্রদান নোয়াখালীতে ইয়াবাসহ বিকালে গ্রেফতার রাতে ছেড়ে দেওয়ার অভিযোগ রাঙ্গুনিয়ায় ৪শতাধিক পরিবারকে শীতবস্ত্র কম্বল বিতরণ নোয়াখালীতে ৫৪দিন পর কবর থেকে কিশোরীর লাশ উত্তোলন দেশে ফিরলেন মওদুদ আহমদের সহধর্মিণী হাসনা মওদুদ নোয়াখালীতে মাকে ৫ টুকরো করে হত্যা: ছেলেসহ ৭ আসামির ফাঁসি নোয়াখালীতে অস্ত্র মামলায় ইউপি চেয়ারম্যানের ১৭ বছরের কারাদণ্ড বাসচাপায় নাদিয়ার মৃত্যু: বিমানবন্দর সড়কে শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ

সমাবেশের জন্য কমলাপুর স্টেডিয়াম চেয়েছে বিএনপি

প্রতিবেদক:

ডিএমপি কমিশনারের সঙ্গে বৈঠক শেষে বেরিয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান বরকত উল্লাহ বুলুছবি: টিভি থেকে নেওয়া নয়া পল্টনের দাবি থেকে থেকে সরে রাজধানীর কমলাপুর স্টেডিয়ামে সমাবেশের অনুমতি চেয়েছে বিএনপি।

অপর দিকে দলটিকে মিরপুরের বাঙলা কলেজ মাঠে এই সমাবেশ করার প্রস্তাব দিয়েছে ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিএমপি)।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা সাতটায় ডিএমপি কমিশনার খন্দকার গোলাম ফারুকের কার্যালয়ে গিয়ে তাঁর সঙ্গে বৈঠকে বসে বিএনপির একটি প্রতিনিধি দল। দুই ঘণ্টার বেশি সময় পরে রাত সাড়ে ৯টার দিকে সেখান থেকে বেরিয়ে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান বরকত উল্লাহ বুলু সাংবাদিকদের কাছে বৈঠকের আলোচনার বিষয়বস্তু তুলে ধরেন।

বরকত উল্লাহ বুলু বলেন, বিএনপির পক্ষ থেকে কমলাপুর স্টেডিয়ামে সমাবেশ করার প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে। এ ছাড়া আরামবাগ ও সেন্ট্রাল রোডসহ কয়েকটি জায়গার প্রস্তাবও দেওয়া হয়েছিল। অপরদিকে ডিএমপি কমিশনার মিরপুর বাঙলা কলেজ মাঠে সমাবেশ করার প্রস্তাব দিয়েছেন। এখন দুটি মাঠই তাঁরা পরিদর্শন করে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরকে পরিস্থিতি সম্পর্কে জানাবেন। তার ভিত্তিতে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে, কোথায় সমাবেশ হবে।

পরে ঢাকা মহানগর পুলিশের গোয়েন্দা বিভাগের প্রধান মোহাম্মদ হারুন অর রশীদও সাংবাদিকদের একই কথা বলেছেন। বিএনপির সমাবেশস্থল নিয়ে সৃষ্টি হওয়া দ্বন্দ্ব আগামীকালই কেটে যাবে বলে মন্তব্য করেছেন তিনি।

১০ ডিসেম্বর ঢাকায় বিএনপির গণসমাবেশের কর্মসূচি আছে। এ গণসমাবেশ কোথায় হবে, তা নিয়ে বিতর্ক-আলোচনার মধ্যেই গতকাল বিকেলে পুলিশের সঙ্গে বিএনপির নেতা-কর্মীদের সংঘর্ষে নয়াপল্টন রণক্ষেত্রে পরিণত হয়। সংঘর্ষে মকবুল আহমেদ নামে বিএনপির এক কর্মী নিহত হন। আহত হন দলটির অর্ধশত নেতা-কর্মী।

সংঘর্ষের পর বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে অভিযান চালায় পুলিশ। সেখান থেকে দলের কেন্দ্রীয় নেতা রুহুল কবির রিজভী, আমানউল্লাহ আমান, আবদুস সালাম, খায়রুল কবির, শহীদ উদ্দীন চৌধুরী, শিমুল বিশ্বাস, ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি আবদুল কাদের ভূঁইয়াসহ কয়েক শ নেতা-কর্মীকে আটক করে পুলিশ। পরে এ ঘটনায় বিএনপির পাঁচ শতাধিক নেতা–কর্মীকে আসামি করে তিনটি মামলা দিয়েছে পুলিশ।

এদিকে আজ সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে তল্লাশি চালায় পুলিশ। দুপুরে ওই কার্যালয়ে যেতে গেলে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরকে কাকরাইলের নাইটেঙ্গেল মোড় থেকে ফিরিয়ে দেওয়া হয়। বিকেল চারটার দিকে বিএনপি কার্যালয়ের সামনের সড়ক যান চলাচলের জন্য ছেড়ে দেওয়া হলেও ওই এলাকায় বিপুলসংখ্যক পুলিশ সদস্য মোতায়েন রয়েছেন।

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম বিকেলে গুলশানে এক সংবাদ সম্মেলনে বলেছেন, নয়াপল্টনে দলীয় কার্যালয়ের সামনেই ১০ ডিসেম্বর বিভাগীয় গণসমাবেশ করবেন তাঁরা। তবে এর মধ্যে গ্রহণযোগ্য বিকল্প জায়গার প্রস্তাব দেওয়া হলে বিবেচনা করবেন।

ডিএমপি কমিশনারের সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে যাওয়া বিএনপির এই প্রতিনিধিদলে বরকত উল্লাহ বুলু ছাড়াও দলের ভাইস চেয়ারম্যন এ জে মোহাম্মদ আলী, আহমেদ আজম খান, এ জেড এম জাহিদ হোসেন ও বিএনপির আইনবিষয়ক সম্পাদক ব্যারিস্টার কায়সার কামাল ছিলেন।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published.

পুরাতন খবর

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯৩০৩১
© All rights reserved © 2017 nktelevision
Design & Developed BY Shera Web